শীত আসলেই ঠোঁট ফাটা সমস্যা, আর নয় জেনেনিন কারণ এবং করণীয়

5/5 - (1 vote)

Chapped lips problem: ঠোঁট ফাটা সমস্যা, শীতকালে ঠোঁটের একটি কমন সমস্যা ৷ ঠোঁট ফাটার পেছনে অনেক কারণ থাকতে পারে৷ যেমন শরীরে পানির অভাব, শুষ্ক আবহাওয়া, শুষ্ক ত্বক এবং ভিটামিনের অভাব। তাছাড়া আমাদের কিছু অভ্যাসেও ঠোঁট ফাটার কারণ হতে পারে ৷ প্রিয়ো ভিউয়ার, শীতকালে ঠোঁট ফাটে কেন এবং করণীয় কি বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে এই আর্টিকেলে ৷ স্বাস্থ্য ও লাইফস্টাইল বিষয়ক টিপস এন্ড টিকস পেতে প্রিয়োবিডির সাথেই থাকুন ৷

ঠোঁট ফাটা সমস্যা, ঠোঁট ফাটার কারণ এবং করণীয়

শীতকালে ছোট বড় সকলেরই এই সমস্যাটি থাকতে পারে ৷ কেননা শরীরের অন্যান্য ত্বকের তুলনায় ঠোঁটের ত্বক খুবই পাতলা এবং সূক্ষ্ম। ঠোঁটে সেবেসিয়াস গ্রন্থি নেই ৷ তাই সেখানে আদ্রতা ধরে রাখতে পারে না ৷ আমরা যদি ঠোঁট ফাটার কারণগুলো জানতে পারি, তাহলে ঠোঁটকে এ সমস্যার হাত থেকে অনেকাংশ রক্ষা করতে পারি ৷ তাই এই আর্টিকেলে শুধু ঠোঁট ফাটার কারণগুলোই উল্লেখ করা হয়নি এর করণীয়গুলোও আলোচনা করা হয়েছে ৷

আরও পড়ুনঃ

  1. ফ্রিতে সূর্যের আলো থেকে ভিটামিন ডি ৷ বিস্তারিত..
  2. হলদে ও কালো দাঁত ফকফকে সাদা করার টিপস..

শীতকালে ঠোঁট ফাটে কেন বা ঠোঁট ফাটা সমস্যার প্রধান কারণগুলো কি কি?

  • শীতের সময় বাতাসের আর্দ্রতা কম থাকে ৷ ফলে ঠোঁট শুষ্ক হতে থাকে এবং ঠোঁট ফেটে যায় ৷
  • শীতের ঠান্ডা বাতাস ঠোঁটে রক্ত ​​​​প্রবাহ কমিয়ে দেয়, যার কারণে ঠোঁট ফেটে যায় ৷
  • শীতকালে রোম গরম রাখার জন্য ইনডোর হিটিং এর ব্যবস্থা করা হয় ৷ এতে করে ঠোঁট শুষ্ক হয়ে যায় এবং ফেটে যায় ৷
  • অনেকসময় শীতকালে গরম ঝরনার পানিতে অনেকে গোসল করে থাকে, এতে করে ঠোঁটের প্রাকৃতিক তেল নষ্ট হয়, যা ঠোঁট ফাটার কারণ হতে পারে ৷
  • শীতকালে অনেকে পানি পান করার পরিমান কমিয়ে দেয় ৷ ডিহাইড্রেশনের ফলে ঠোঁট ফেটে যেতে পারে ৷
  • অনেকেই শীতে বেশি বেশি জিহ্বা দিয়ে ঠোঁট ভিজিয়ে রাখে, এতে করে দেখা যায় ঠোঁটের লালা বাষ্পীভূত হয়ে ঠোঁট শুকিয়ে যায় এবং এটি ঠোঁট ফাটার অন্যতম একটি কারণ ৷
  • ভিটামিন বি এবং আয়রনের মতো ভিটামিন এবং খনিজগুলির অভাবে ঠোঁট ফেটে যেতে পারে ৷
  • মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়া এবং শ্বাস ছাড়া উভয় ঠোঁটের আর্দ্রতা কমিয়ে দিতে পারে ৷ এতে করে ঠোঁট ফেটে যেতে পারে ৷
  • অ্যালার্জিতে ঠোঁটের জ্বালা এবং শুষ্কতা হতে পারে, ফলে ঠোঁট ফাটার কারণ হতে পারে ৷
  • কিছু ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় ঠোঁট শুষ্ক হতে পারে, যা ঠোঁট ফাটার কারণ হতে পারে ৷
  • ক্যাফেইন এবং অ্যালকোহল উভয়ই ডিহাইড্রেশনে অবদান রাখতে পারে, ঠোঁটের আর্দ্রতাকে নষ্ট করে দিতে পারে ৷ যার ফলে ঠোঁট ফেটে যেতে পারে ৷
  • ধূমপানের ফলে ত্বক শুকিয়ে যায়, যা ঠোঁট ফাটার কারণ হতে পারে ৷

শীতে ঠোঁট ফাটা সমস্যা, আমাদের করণীয় কি?

  • শরীরের হাইড্রেশন বজায় রাখতে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুণ ৷ এতে আপনার ঠোঁট ভিতর থেকে আদ্রতা বজায় থাকবে ৷
  • হিউমিডিফায়ার ব্যবহার করে অভ্যন্তরীণ বাতাসকে আর্দ্র রাখুন ৷ এতে করে ঠোঁট শুষ্ক কম হবে ৷
  • শীতকালে সূর্যের আলো থেকে আপনার ঠোঁটকে রক্ষা করতে এসপিএফ যুক্ত লিপবাম বা লিপস্টিক(সানস্ক্রিন) ব্যবহার করতে পারেন ৷
  • জিহ্বা দিয়ে ঠোঁট চাটা বন্ধ করুন ৷ কেননা লালা বাষ্প হয়ে ঠোঁট আরও শুষ্ক হয়ে যেতে পারে ৷
  • যাদের ঠোঁট অলরেডি ফেটে গেছে, তারা একটি নরম টুথব্রাশ বা হালকা ঠোঁট স্ক্রাব ব্যবহার করে আলতোভাবে মরা চামড়াগুলো তুলে ফেলতে পারেন ৷
  • বেশি বেশি ভিটামিন এবং খনিজ সমৃদ্ধ খাদ্য গ্রহণ করুণ, বিশেষ করে ভিটামিন বি এবং আয়রন, যা ত্বকের স্বাস্থ্যকে ভালো রাখে ৷
  • বাতাস এবং ঠান্ডা আবহাওয়া থেকে আপনার ঠোঁটকে রক্ষা করার জন্য আপনার মুখ একটি স্কার্ফ বা একটি উচু কলার দিয়ে ঢেকে রাখতে পারেন ।
  • ঠোঁট ভালো রাখতে পেট্রোলিয়াম জেলি ব্যবহার করতে পারেন ৷
  • শীতকালে গরম পানিতে গোসল করা ত্বকের প্রাকৃতিক তেল নষ্ট হওয়ার অন্যতম কারণ ৷ তাই ঠোঁট ফাটা থেকে রক্ষার জন্য শীতে গরম পানিতে গোসল বর্জন করুণ ৷
  • ক্যাফিন এবং অ্যালকোহলের ব্যবহার কমিয়ে দিন, কারণ তারা ডিহাইড্রেশনে অবদান রাখতে পারে।
  • মুখ দিয়ে শ্বাস নেওয়া এবং ছাড়া উভয় ঠোঁটের আদ্রতা কমে যাওয়ার আরেকটি কারণ ৷ তাই নাক দিয়ে করুণ ৷
  • সারারাত আপনার ঠোঁট হাইড্রেটেড রাখতে শোবার আগে একটি ভালো মানের লিপবাম বা মলম লাগাতে পারেন।
  • ধূমপান বন্ধ করুণ ৷ কেননা ধূমপান শুষ্ক এবং ক্ষতিগ্রস্ত ঠোঁটে অবদান রাখতে পারে।
  • যদি ঠোঁটা ফাটা বন্ধ না হয়, ব্যক্তিগত পরামর্শ এবং চিকিত্সার জন্য একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞের সাথে পরামর্শ করুন।

ঠোঁট ফাটা সমস্যা নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন-উত্তর(FAQ)

শীতকালে ঠোঁট ফাটার কারণ কী?

উত্তরঃ শীতকালে ঠোঁট ফাটার অন্যতম কারণ হলো বাতাসে আর্দ্রতা কম থাকা এবং ঠান্ডা তাপমাত্রা ৷ যার কারণে ঠোঁট করে তোলে শুষ্ক ও রুক্ষ ৷ ফলে ঠোঁট ফেটে যায় ৷

ঠোঁট ফাটা কিভাবে দূর করা যায়?

উত্তরঃ ঠোঁট ফাটা দূর করতে প্রচুর পানি পান করুণ, লিপবাম ব্যবহার করুন, শীতের ঠান্ডা বাতাস থেকে যতোদূর পারেন ঠোঁট রক্ষা করুণ, ঠোঁট চাটা বন্ধ করুণ, ভিটামিন বি ও আয়রণ সমৃদ্ধ খাবার খান ইত্যাদি ৷

ডিহাইড্রেশনের কারণে কি ঠোঁট ফেটে যেতে পারে?

উত্তরঃ হ্যা, ডিহাইড্রেশন ঠোঁটের আর্দ্রতা হ্রাস করে, ত্বক শুষ্ক করে ৷ ফলে ঠোঁট ফেটে যায় ৷

ঘরোয়া উপায় কিভাবে ঠোঁট ফাটা রোধ করবেন?

উত্তরঃ ঘরোয়া উপায়ে মধু, নারকেল তেল এবং অ্যালোভেরা ফাটা ঠোঁট প্রশমিত করতে ভালো গুনাগুণ রয়েছে ৷

ফাটা ঠোঁটের জন্য লিপবাম ব্যবহার ভালো নাকি খারাপ?

উত্তরঃ ভালো ৷ ঠোঁটের শুষ্কতা থেকে রক্ষায় এসপিএফ লিপবাম ব্যবহার করতে পারেন ৷ ঠোঁটের প্রয়োজন বুঝে এসপিএফ ১৫–৩০ লিপবাম ব্যবহার করা যাবে। তবে ঠোঁট ফাটা সমস্যা সমাধানের জন্য সম্পূর্ণ লিপবাম এর উপর নির্ভরশীল হওয়া চলবে না ৷

কোন ভিটামিনের অভাবে ঠোঁট ফাটে?

উত্তরঃ কিছু নির্দিষ্ট ভিটামিনের অভাবে ঠোঁট ফাটে যেমন ভিটামিন বি২ (রাইবোফ্লাভিন), ভিটামিন বি৩ (নিয়াসিন), ভিটামিন বি৬ (পাইরিডক্সিন) এবং ভিটামিন বি১২ ৷ এই ভিটামিনগুলি ত্বকের স্বাস্থ্য বজায় রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং পাশাপাশি শুষ্ক ত্বক, ফাটা ঠোঁটের ঘাটতিজনিত সমস্যা থেকে রক্ষা করে ৷

Disclaimer: এই আর্টিকেল শুধুমাত্র সাধারণ তথ্যের উদ্দেশ্যে এবং একটি ধারনা নেওয়ার জন্য ৷ এটি কখনই দক্ষ চিকিৎসকের বিকল্প হতে পারে না ৷ তাই আপনার খাদ্যতালিকায় নতুন কিছু সংযোজন এবং যেকোনো স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই একজন দক্ষ চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন ৷