নীল অপরাজিতা উপন্যাস রিভিউ | nil oporajita book reviews

5/5(1 vote)

প্রিয় ভিউয়ার, হুমায়ূন আহমেদ এর উপন্যাস নীল অপরাজিতা নিয়ে সুন্দর একটি রিভিউ নিয়ে আসলাম ৷ হুমায়ূন আহমেদ এর বিখ্যাত উপন্যাস গুলোর মধ্যে নীল অপরাজিতা একটি ৷ এরকম কবি-সাহিত্যিকদের বিখ্যাত বইয়ের রিভিউ পেতে আমাদের প্রিয়বিডির সাথেই থাকুন ৷ ধন্যবাদ ৷

হুমায়ূন আহমেদ এর বই সমূহ

হুমায়ূন আহমেদ এর বিখ্যাত কিছু বই এর লিষ্ট দেওয়া হলো,,

  • দেয়াল
  • শূন্য
  • কৃষ্ণপক্ষ
  • জোছনা ও জননীর গল্প
  • ময়ূরাক্ষী
  • বাদশাহ নামদার
  • তোমাকে
  • কোথাও কেউ নেই
  • দেবী
  • নন্দিত নরকে
নীল অপরাজিতা উপন্যাস রিভিউ | nil oporajita book reviews

নীল অপরাজিতা উপন্যাস রিভিউ

বইঃনীল অপরাজিতা
লেখকঃহুমায়ূন আহমেদ
প্রকাশনীঃমাওলা ব্রাদার্স
পেজঃ৭০
ভাষাঃবাংলা
ক্যাটাগরিঃসমকালীন উপন্যাস

হুমায়ূন আহমেদ বই পিডিএফ

হুমায়ূন আহমেদ এর বিখ্যাত কিছু বইয়ের পিডিএফ লিংক দেওয়া হলো ৷ পড়ে দেখতে পারেন, আশা করি ভালো লাগবে ৷

✍️ দেয়াল উপন্যাস PDF
✍️ মিসির আলি সমগ্র PDF
✍️ কৃষ্ণপক্ষ PDF
✍️ জোছনা ও জননীর গল্প PDF
✍️ হুমায়ূন আহমেদ এর সকল বই PDF

নীল অপরাজিতা উপন্যাস সংক্ষেপে

নীল অপরাজিতা উপন্যসটি একজন লেখককে নিয়ে । তিনি শহরের পরিবেশ ছেড়ে গ্রামের যাচ্ছেন লেখালিখি করতে । শহরের ব্যস্ত জীবন থেকে একটু মুক্তি চান । গ্রামে তিনি যার বাসায় তিনি পেশায় একজন শিক্ষক । লেখক আসবেন শুনে সাধ্যের সব টুকু দিয়ে চেষ্টা করে যাচ্ছেন । যারা লেখককে চিনেন তারা সবাই লেখকের সাথে যেকোনো মূল্যেই দেখা করতে চান । শিক্ষকের মেয়ের নাম পুষ্প , তার সাথে লেখকের সব সময় কথা হয় । তবে পুষ্প লেখককে এখন এড়িয়ে চলছে । লেখকের স্ত্রী লেখকের উপর বড্ড অভিমান করেছে , লেখকের চিঠির কোনো উত্তর দিচ্ছে না । লেখক মনে করতেছেন পুষ্প তার হয়তো ডিজাইনের বাকী অংশটুকু !

তার সব গল্প , কাহীনি তৈরী হয়েছে শহরের কোলাহল যুক্ত পরিবেশে । মানুষদের হাউকাউ , গাড়ির হর্ন একেবারে বিষিয়ে তুলেছিল তাকে । তাই একটু হাওয়া বদল দরকার । আর সেইজন্য ২০ দিনের জন্য গ্রামে আসা । গ্রামের পরিবেশে এবং শহরের পরিবেশের মধ্যে কোন পরিবেশে গল্প লেখা জমে নীল অপরাজিতায় হবে তার অগ্নীপরীক্ষা । গ্রাম সম্পর্কে লেখক শওকতের খুব একটা ধারনা ছিল না কিন্তু বজুলুর রহমান গ্রাম সম্পর্কে বলায় তার এমন ধারনা হয়েছে যে শেষ পর্যন্ত গ্রামে আসলেন কিন্তু বজুলুর রহমানের বলা গ্রামের সাথে এই গ্রামের কোন মিল নেই । প্রথম কথা বর্ষাকাল হওয়া সত্বেও কোন ব্যঙ্গের ডাক শুনতে পাচ্ছেন না তিনি । বর্ষাকাল তাহলে ব্যঙ ডাকবে না কেন ? লেখা বাদ দিয়ে শওকাত খুজতে লাগলেন সেই রহস্য । পেলেও গেলেন অদ্ভুত সব সমাধান । গ্রামে এসেছেন কোলাহল মুক্ত পরিবেশে লেখালেখি করতে কিন্তু এটা যেন অপূরণীয় কল্পনা ছাড়া আর কিছুই নয় । কারন গ্রামে এমন সব মানুষদের সাথে পরিচয় হচ্ছে যারা অনর্গল কথা বলতে ভালবাসে । অপরজন বিরক্ত হল কি হলনা সেদিকে তাদের খেয়াল নেই ।

এরকম অনেক মানুষের মজারসব কথা উল্লেখ আছে তবে আর একজন আছে যাকে বলা যেতে পারে গল্পের নায়িকা তার কথা কিছু বলি । নায়িকার নাম পুষ্প । পুষ্পের সাথে প্রথমে শওকত অনেক খারাপ ব্যাবহার করে । কিন্তু সেটা গায়ে মাখে না সে । বরং যেদিন প্রচন্ডে ঝরের কবলে পরে মর মর অবস্থা হয়েছিল শওকতের সেদিন অনেক যত্নআত্তি করে । এভাবে আরো ছোটখাটো বিষয়ের পরে পুষ্পের প্রতি একটা ভাল লাগা তৈরী হয় । কিন্তু শওকত বুঝতে পারেনা এটা ভালবাসা কিনা । ভালবাসা না হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি কারন শওকত বিবাহিত , অনেক বড় মেয়ে আছে তার ।